বিশ্বের ১ নাম্বার ধনী জেফ বেজস ফাঁস করলেন তার সাফল্যের রহস্য! কি সেটা?

Amazon.com এর প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান কার্যনির্বাহী জেফ বেজস পেছনে ফেলে দিলেন বিল গেইট্‌স কে। তাঁর সফলতার একটা সূত্র তিনি প্রকাশ করলেন সম্প্রতি যেটা শুধু সম্পদশালী হতেই না, একজন মানুষকে সার্বিকভাবেও সফল করে দিতে পারে।

বিশ্বের সবচে সেরা ধনী আমেরিকার বিল গেইট্‌সকে সম্প্রতি পেছনে ফেলে দিলেন আরেক জায়ান্ট আমাজন’র প্রতিষ্ঠাতা জেফ বেজস। ১৯৯৪ সালে তাঁর প্রতিষ্ঠা করা ই-কমার্স সাইটের কল্যানে আজ তিনি এত দূর। তাঁর সম্পদের বর্তমান মুল্য আছে ৪০০ কোটি ডলারেরও বেশি। আমাদের টাকায় সেটা ৩২০০০০০০০০০০ (বত্রিশ হাজার কোটি, হিসেবে ভুলও হতে পারে আমার, এত টাকার হিসাব!) মাথা ঘুরতে পারে কারও কারও। তবে সেদিকে খেয়াল না দিয়ে জেফ সাহেব কি বললেন সেটা শুনি তাঁর মুখেই। তিনি সেদিন বললেন যে,

“আমি নিজেকে ৮০ বছর বয়সে নিয়ে যাই এবং ভাবি”

কি অদ্ভুত কথা, তাই না? আসলেই! তবে তিনি আরও কথা বলেছিলেন কিছু। নিজেকে আশি বছরে কেন নিতে চান তার একটা ব্যখ্যাও দিয়েছিলেন। তিনি বললেন যে, জীবনে কি করতে পারতাম আর করতে পারতাম না, কি করা উচিত ছিল আর কি উচিত ছিল না সেগুলো নিয়ে শেষ বয়সে মানুষ আফসোস করে, করে অনুশোচনা। “কিন্তু আমি সেই অনুশোচনা বা আফসোস করতে চাইনা, তাই নিজেকে আশি বছরে নিয়ে গিয়ে ফেলে আসা দীর্ঘ জীবনের দিকে ফিরে তাকাই। বুঝতে চেষ্টা করি তখন আমার কোন কোন বিষয় নিয়ে আফসোস হতে পারে।“

কি চমৎকার ভাবনা জেফ এঁর! মানুষ অনেক সময় একটা কাজ করে নিয়ে তারপর ভাবতে বসে কি করলাম, কি হতে পারে, ভাল কি মন্দ। আর তিনি? করার আগেই নিজের সূক্ষ্ম দূরদর্শিতা দিয়ে আরও সামনে এগিয়ে পেছনে ফিরে তাকাতে চান। “আমি যদি আশি বছরে গিয়ে পেছনে তাকিয়ে নিজের কোন ব্যর্থতাকে দেখতে পাই সেটা নিয়ে আমার কোন আফসোস থাকবে না, তবে যদি এমন কিছু দেখতে পাই যেটা আমি করতে পারতাম, করা উচিত ছিল কিন্তু করিনি, তবে সেই না করার আফসোস বা অনুশোচনা আমাকে প্রতিটা দিন তাড়িয়ে নিয়ে বেড়াবে।“

এখানে যেটা খুব শেখার তা হল, ব্যর্থতাকে তিনি বড় করে দেখেন নি, বরং কি করা উচিত আর উচিত না সেগুলো করা বা না করার বিষয়ে তিনি সতর্ক থাকার কথা বলেছেন। অনেক সময় ভুল কাজ করেও সফলতা আসতে পারে, ঠিক যেমন ঠিক কাজ করার পরও ব্যর্থতা আসতে পারে। তাই পরে যেন এগুলো নিয়ে আমরা হা-হুতাশ না করি তাই এখন থেকেই সতর্ক হয়ে কাজ করতে হবে। তাহলেই অনুশোচনার পরিধি ছোট হয়ে আসবে এবং সঠিক সিদ্ধান্তটা নিতে শিখতে পারব, ইন শা আল্লহ্‌।

এই ছিল জেফ বেজসের সফলতার একটা গোপন সূত্র। তাঁকে নিয়ে পরের লেখায় থাকছে তাঁর মহামূল্যবান আরেকটি পরামর্শ।

সাথে থাকুন, ধন্যবাদ।

তথ্যসুত্রঃ
https://rd.com
https://goodreads.com

*তবে একটা প্রশ্ন। রাতে ঘুম কার ভাল হয়? এই ধনী মানুষটির, না কি আপনার?

বিশ্বের ১ নাম্বার ধনী জেফ বেজস ফাঁস করলেন তার সাফল্যের রহস্য! কি সেটা?

About The Author
-

2 Comments

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>