স্টিভ জবস্‌ কেন প্রতিদিন একই পোশাক পরতেন? একই পোশাক প্রতিদিন পরলে কি হয় জানুন (শেষ পর্ব)

নতুন পোশাক কিনতে কার না ভাল লাগে? আর যদি সেটা হয় সাধ্যের মধ্যে, তাহলে তো কথাই নেই। কিন্তু এই কেনাকাটার মাধ্যমে আপনি কি এগিয়ে নিচ্ছেন নিজেকে? না কি বিপরীতটা? জানাচ্ছেন বিশ্বখ্যাত ওয়েবসাইট ফোর্বস্‌ এর নিয়মিত লেখক Joshua Becker

 

প্রথম পর্ব পড়তে ক্লিক করুন এখানে

 

“কয়েকবছর আগে একদিন ইচ্ছেকরেই সিদ্ধান্ত নিই যে এখন থেকে প্রতিদিন একই পোশাক পরব। তো, শুরু করে দিলাম একটা গাড় ধূসর রঙের টি-শার্ট এবং খাকি প্যান্ট দিয়ে। প্রথমদিকে আমি এটা পরীক্ষামূলকভাবে এক সপ্তাহের জন্য পরলাম। দেখতে চাইছিলাম যে মানুষের কি প্রতিক্রিয়া হয় আমাকে বারবার একই পোশাকে দেখে। যদিও নিজের ইচ্ছাতেই এটা করছিলাম তবুও আমারও যে পোশাক বদলাতে ইচ্ছা করত না তা কিন্তু না। আমাদের প্রায় সবারই সকালে উঠে নতুন কিছু গায়ে জড়াতে ইচ্ছা করে। আমিও এর ব্যতিক্রম ছিলাম না।”

আপনার ওয়ারড্রব ছোট রাখার জন্য হোক, বা সবসময়ে পরার জন্য একটা পোশাক বেছে নেওয়ার জন্য হোক, অথবা সিমপ্লি সাদামাটাভাবে চলার জন্য হোক, কমপক্ষে এক সপ্তাহের জন্য হলেও এই এক্সপেরিমেন্টটা আপনি করতে পারেন, মানে করা উচিত। কারণঃ

৩। আপনার ওয়ারড্রব ছোট রাখবে

মিনিমালিজম হল যা সবচে গুরুত্বপূর্ণ সেটার পরে ফোকাস রেখে বাকিগুলো ঝেড়ে ফেলা। এই অভ্যাসে চললে সব পরিস্থিতিতেই মানিয়ে নেওয়া যায়।  এই নীতি আমি অনুসরণ করে দেখেছি যে আমার ক্লোসেটগুলো এখন আগের থেকেও পরিচ্ছন্ন, পরিপাটি এবং অবশ্যই আকারে ছোট। আর যখনই আমার পরার কিছু দরকার পরে, আমি অনায়াসেই, কোন পরিশ্রম ছাড়াই সেখান থেকে এমন পোশাকই বেছে নিই যা আমার সবচে প্রিয়।




৪। আজীবনের মত একটা ফ্যাশন সঙ্গী করুন

আমি সবসময় পরিমাণের থেকে মানের ওপর জোর দেই। এখন পোশাক নির্বাচনের ক্ষেত্রেও যদি একই নীতি অনুসরণ করি আর সেই পোশাকই যদি প্রতিদিন গায়ে দেই, এতে করে আমি নিজেই বুঝতে পারব কোন জিনিসগুলো আমার কাছে সবচে গুরুত্বপূর্ণ। একইভাবে আপনি যদি নতুন কিছু কিনতে যান, কেনার আগে একটু ভাবুন। কয়েক বছর পর এই পোশাকগুলো আপনার কাছে ভাল লাগবে? তখনও এগুলোই গায়ে দিতে চাইবেন? সত্যি বলতে ট্রেন্ড এর পেছনে ছোটা খুব চ্যালেঞ্জিং, আর এতে করে সীমাহীন খরচের পথ সামনে এসে দাঁড়ায়। তারচে, মানসম্মত পণ্যের দিকে ঝুঁকুন, যেটা বছরের পর বছর আপনাকে সব পরিস্থিতিতে মানিয়ে নিতে সাহায্য করবে। নতুন কিছু কেনার আগে অন্তত অসংখ্যবার সেগুলো সানন্দে ব্যবহার তো করতে পারবেন।

৫। প্রসংশা তুলে নিন ঘরে

কিভাবে? এক সপ্তাহ পর দেখলাম কাপড়চোপড় যা ধোয়ার দরকার তার পরিমাণ খুবই কম। টি-শার্ট ও জিন্স। সারা সপ্তাহে যা গায়ে দিয়েছি তার পরিমাণ কম হওয়ায় লন্ড্রিতে পোশাকও দিয়েছি কম। শুধু কি তাই? পোশাক কম তাই সেগুলো ধোয়া, শুকানো, ইস্ত্রি করা, ভাঁজ করে ঠিকঠাক রাখতে গিয়ে আমার দিনের অর্ধেকটা খরচও হয়নি। ওই সময়টুকুতে আমি খেলেছি, পড়েছি, আর কত কি শুনেছি। একান্তই নিজের মত করে পরিবারকে সময় দিয়েছি।

www.todayilearned.co.uk

image credit: www.todayilearned.co.uk

শুধু আমি কেন, পৃথিবীর কিছু বিখ্যাত মানুষের কথাও আসতে পারে যাদের ওয়ারড্রবের সাইজও ছোট। তাঁরাও একই পোশাক প্রতিদিন পরেন। স্টিভ জবস্‌ এর কথাই ধরুন। সারা বিশ্বের কাছে তিনি একজন আইকন। কিন্তু দেখুন, প্রেজেন্টেশন থেকে শুরু করে, কনফারেন্স বা কাজের চাপ-সব খানেই তিনি একই কালো টারটল্‌নেক, নীল জিন্স আর গোলাকৃতির ফ্রেমের চশমা। তিনি তো সফল ছিলেন তাই না একই পোশাক পরার কারণে? কিন্তু তাঁর কাছে এটা অনেক বড় একটা বিষয় ছিল। কারণ তিনি ছিলেন কল্পনাতীত ব্যস্ত একজন মানুষ। তাই পোশাক কি পরবেন সেটা আগে থেকেই নির্ধারিত থাকা মানেই তাঁর মত মানুষের অনেকটা সময় বেঁচে যাওয়া।

শেষে বলব, একই পোশাক প্রতিদিন গায়ে জড়ালে একটা সময় আপনি অনুধাবন করতে পারবেন আপনার কাছে সবচে গুরুত্বপূর্ণ কোন জিনিসটি। এবং খুব দ্রুতই একটা চরম সত্য আবিষ্কার করবেন যে আপনার পোশাকই সবকিছু না।“

তথ্যসূত্রঃ FORBES

রুপান্তর, সংক্ষেপণ, সম্পাদন-
টিপস্‌ আনবক্স

প্রথম পর্ব পড়তে ক্লিক করুন এখানে

স্টিভ জবস্‌ কেন প্রতিদিন একই পোশাক পরতেন? একই পোশাক প্রতিদিন পরলে কি হয় জানুন (শেষ পর্ব)

| বিবিধ | 1 Comment
About The Author
-

1 Comment

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>